করোনা আক্রান্ত ‘জুলিয়ার’ একেবারেই ভিন্ন উপসর্গ

করোনাভাইরাস আতঙ্কে ভুগছে গোটা বিশ্ব। প্রতিদিন বেড়েই চলেছে মৃত ও আক্রান্তের সংখ্যা।

করোনাভাইরাসের লক্ষণ হিসেবে এতদিন সাধারণত সর্দি, জ্বর, কাশি ,শ্বাস কষ্টের কথা জানা যাচ্ছিল। তবে মানুষ ভেদে করোনার লক্ষণ ভিন্নও হতে পারে।

২০ বছর বয়সী এক মার্কিন নারী ‘জুলিয়া’ করোনা থেকে সুস্থ হয়ে ওঠার পর তার লক্ষণগুলো প্রকাশ করেছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে শেয়ার করেছেন করোনার ভিন্নধর্মী লক্ষণ।

প্রথমে স্বাভাবিক ঠান্ডা লেগেছিল ‘জুলিয়ার’। ফেব্রুয়ারির ২৯ তারিখে তার শরীরে ব্যথা শুরু হয়। সেই সঙ্গে মাথা ব্যথা, গলা জ্বলা, কানে শুনতে না পাওয়ার সমস্যা ছিল তার। শরীরের তাপমাত্রা ছিল ১০০.২ ডিগ্রি ফারেনহাইট। মার্চের ৩ তারিখ কানে কিছু শুনতে পাচ্ছিলেন না তিনি। সেই সাথে কোনও কিছুর ঘ্রাণ নেওয়া বা স্বাদ নেওয়ার ক্ষমতাও ছিল না তার। তবে কোনও ধরনের কফ বা নাকে পানি আসার মত সমস্যা ছিল না জুলিয়ার।

দিনের পর দিন ক্রমাগত বাড়তে থাকে জুলিয়ার মাথা ব্যথা। যার জন্য স্বাভাবিকভাবে প্যারাসিটামল ওষুধ খেয়েছিলেন তিনি। এরপর বিশ্রামের জন্য মার্চের ৫ থেকে ১৩ তারিখে নিজেই কোয়ারেন্টাইনে যান জুলিয়া। তিনি বলেন, ততদিনে আমার সব সমস্যার সমাধান হতে শুরু করেছে, আমি কানে শুনতে পাচ্ছি, আমার ঘ্রাণ ইন্দ্রিয়ও কাজ করছে। সেই সাথে মুখের স্বাদও ফিরে এসেছে।

এরপর ১৩ তারিখের পর পরিবারের সদস্যদের অনুরোধে করোনা পরীক্ষা করান তিনি। মেডিকেল পরীক্ষার ফলাফলে করোনা পজেটিভ আসে তার। অবাক হয়ে যান জুলিয়া। কারণ করোনা আক্রান্ত রোগীর মধ্যে যেসব সাধারণ লক্ষণ প্রকাশ পাওয়ার কথা তার চেয়ে ব্যতিক্রম তার লক্ষণগুলো। তবুও কোভিড-১৯ পজিটিভ আসে তার। এরপর পর্যাপ্ত চিকিৎসার পর সুস্থ হয়ে ওঠেন জুলিয়া।

সংগৃহীত

About স্টাফ রিপোর্টার

Check Also

সংবাদ সম্মেলনে এসে শান্তির বার্তা দিল তালেবান

বিশ্বকে চমকে দিয়ে অতি দ্রুত কাবুল দখল করে ফেলার দুদিন পর মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাজধানীতে সংবাদ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *