দেশের পেঁয়াজ আমদানি অব্যাহত

দেশের পেঁয়াজের সংকট কাটাতে সরকার ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান মিয়ানমার, চীন, মিশর ও তুরস্ক থেকে পেঁয়াজ আমদানি অব্যাহত রেখেছে। বৃহস্পতিবারও ৪১৫৯ মেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানি করা হয়েছে বলে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. আব্দুল লতিফ বকসী স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

বৃহস্পতিবার কক্সবাজারের টেকনাফ ১২২৭ মেট্রিক টন পেঁয়াজ এবং চট্রগ্রাম সমুদ্র বন্দর হয়ে ২৯৩২ মেট্রিক টন পেঁয়াজ দেশে পৌঁছে। এসব পেঁয়াজের ১২২৭, ৩৮৪, ৮৪, এবং ২৫০০ যথাক্রমে মিয়ানমার, চীন, মিশর ও তুরস্ক থেকে আমদানি করা হয়েছে। বিভিন্ন আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান এ সকল পেঁয়াজ আমদানি করছে।

দেশে পেঁয়াজের সরবরাহ ও মূল্য স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত পেঁয়াজ আমদানি অব্যাহত থাকবে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় দেশে পেঁয়াজ আমদানি সরবরাহ এবং সার্বিক পরিস্থিতি সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়ে মনিটরিং অব্যাহত রেখেছে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়।

তবে পেঁয়াজ আমদানি অব্যাহত থাকলে আসন্ন পেঁয়াজ উৎপাদনের মৌসুমে পেঁয়াজ-চাষীরা ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে বলে মনে করেন কৃষি অর্থনীতিবিদরা।

“দেশজ উৎপাদন হওয়ার পরপরই যখন বাজারে পেঁয়াজ আসবে, তখন বাজারের সিংহভাগই হবে দেশী পেঁয়াজ।”

কিন্তু সেসময় যদি সরকার পেঁয়াজ আমদানি অব্যাহত রাখে তাহলে বাজারে পেঁয়াজের সরবরাহ বেড়ে যাবে এবং দাম কমে যাবে।

বাজারমূল্য যদি কমে যায় তখন দেশীয়ভাবে পেঁয়াজ উৎপাদনকারী কৃষকরা তাদের উৎপাদিত পণ্য বাজারে বিক্রি করার সময় কম দাম পাবেন এবং ক্ষতিগ্রস্ত হবেন।

 

About স্টাফ রিপোর্টার

Check Also

হেফাজতে ইসলামের আমির জুনায়েদ বাবুনগরী ইন্তেকাল করেছেন

হেফাজতে ইসলামের আমির আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী ইন্তেকাল করেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। বৃহস্পতিবার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *