নিউজিল্যান্ডে বিজয় পেল জেসিন্ডা আরডার্নের লেবার পার্টি

নিউজিল্যান্ডে অনুষ্ঠিত হচ্ছে জাতীয় নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। করোনা মহামারির প্রভাবের পরও নির্ধারিত সময়ের চার সপ্তাহ পর এই নির্বাচনের আয়োজন করা হয়েছে। স্থানীয় সময় সকাল ৯টায় শুরু হওয়া ভোট চলবে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত।

মোট ১৭ জন প্রার্থীর অংশগ্রহণ থাকলেও মূল প্রতিদ্বন্দ্বীতা ক্ষমতাসীন লেবার পার্টির নেতা জেসিন্ডা আরডার্ন ও ন্যাশনাল পার্টি প্রধান জুডিথ কলিন্সের মধ্যে।

আজ শনিবার বিকেলে ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মধ্য-বামপন্থি জেসিন্ডা আরডার্নের লেবার পার্টি মোট ভোটের ৪৯ ভাগ এবং প্রতিদ্বন্দ্বী প্রধান বিরোধী দল কনজারভেটিভ ন্যাশনাল পার্টি পেয়েছে ২৭ ভাগ ভোট। দেশটির ১২০ আসনের মধ্যে এরই মধ্যে ৬৪টি আসনে জয় পেয়েছে লেবার পার্টি। আরো ভোট গণনা বাকি রয়েছে।

ভোটে বিজয়ের পর জেসিন্ডা আরডার্ন সমর্থক ও নিউজিল্যান্ডবাসীর প্রতি শুভেচ্ছা ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘নিউজিল্যান্ডবাসী গত ৫০ বছরের মধ্যে লেবার পার্টির প্রতি সবচেয়ে বেশি সমর্থন ও আস্থা রেখেছে। আপনি কাকে ভোট দিয়েছেন সেটা আমরা গণ্য করব না বরং আমি আপনাদের প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি, আমরা প্রতিটি নিউজিল্যান্ডবাসীর সরকার হব।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, করোনাকালীন লেবার পার্টির গৃহীত ব্যবস্থা ও ভূমিকা নিউল্যান্ডবাসীকে মুগ্ধ করেছে। পাশাপাশি দেশের অর্থনীতিকে এগিয়ে নেওয়ার ক্ষেত্রে লেবার পার্টির প্রতিশ্রুতিতে তারা আস্থা রেখেছে।

বড় ব্যবধানে ‘অসামান্য’ বিজয়ের জন্য জেসিন্ডা আরডার্নকে অভিনন্দন জানিয়েছেন কনজারভেটিভ ন্যাশনাল পার্টির নেতা জুডিথ কলিন্স। তিনি প্রতিশ্রুতি দেন তাঁর দল ‘শক্তিশালী বিরোধী দলের’ ভূমিকাই নেবে।

কনজারভেটিভ ন্যাশনাল পার্টির প্রধান বলেন, চোখের নিমিষেই তিন বছর চলে যাবে। পরবর্তী জাতীয় নির্বাচনের দিকে ইঙ্গিত করে তিনি আরো বলেন, ‘আমরা ফিরবই।

About স্টাফ রিপোর্টার

Check Also

সংবাদ সম্মেলনে এসে শান্তির বার্তা দিল তালেবান

বিশ্বকে চমকে দিয়ে অতি দ্রুত কাবুল দখল করে ফেলার দুদিন পর মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাজধানীতে সংবাদ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *