প্রিয় মানুষের সঙ্গে রাজস্থানে ছুটি কাটাচ্ছেন “সারা “

নবাগতাদের মধ্যে অন্যতম জনপ্রিয় সারা আলি খান। বর্তমানে একাধিক প্রোজেক্ট রয়েছে অভিনেত্রীর হাতে। একাধিক বড় প্রোজেক্টের অফারও রয়েছে। কিন্তু তার মধ্যেই ব্যস্ত রুটিন থেকে সময় বের করে জীবনের বিশেষ মানুষের সঙ্গে ছুটি কাটাচ্ছেন তিনি।

বর্তমানে অভিনেত্রী রয়েছেন রাজস্থানে। তাঁর সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রোফাইলে সেখানকারই একাধিক ছবি জ্বলজ্বল করছে। দিচ্ছেন সুন্দর সুন্দর স্টোরিও। সম্প্রতি আজমের শরিফ দরগার একটি ছবি পোস্ট করেন। সঙ্গে দেখা যায়, সেই বিশেষ মানুষটিকে। যে ছবি ভালোবাসায় ভরিয়ে দেন তাঁর ভক্তরা।

আসলে মা অমৃতা সিং এর সঙ্গে বিশেষ সময় কাটাচ্ছেন সারা। ঘুরছেন রাজস্থানের একাধিক জায়গা। সেই সূত্রেই সম্প্রতি আজমের শরিফ দরগায় পৌঁছান দু’জন। অপূর্ব সুন্দর পোশাকে দেখা যায় দু’জনকেই। সারা পরেছিলেন একটি হালকা সবুজ রঙের সালোয়ার কামিজ, তার মধ্যে সাদা ও হালকা পিঙ্ক রঙের লখনউ চিকন কাজ। এদিকে অমৃতা হালকা সবুজ রঙের প্রিন্টেড সালোয়ার কামিজ পরেছিলেন। কোভিড পরিস্থিতিতে দু’জনের মুখেই মাস্ক দেখা যায়।

নিজের Instagram অ্যাকাউন্টে তিনটি ছবি শেয়ার করেন অভিনেত্রী। যার একটিতে সারা ও অমৃতার পাশে স্বপ্না সিংকেও দেখা যায়। এখানেই শেষ নয়, মায়ের সঙ্গে ছুটি কাটানোর মুহূর্তে অভিনেত্রী ডায়েটও করছেন না বলে জানা গিয়েছে। আজমের শরিফে গিয়ে লস্যিতে মজেছেন তিনি। ছবি দিয়েছেন ইনস্টা স্টোরিতেও। লিখেছেন, নো ডায়েট। তাঁদের এই ছবিগুলি দেখলেই বোঝা যাচ্ছে, আপাতত দু’জন বিশেষ সময় কাটাচ্ছেন। দারুণ উপভোগ করছেন একে অপরের উপস্থিতি।

এ দিকে, বর্তমানে সারা আনন্দ এল রাই এর আতরঙ্গি রে ছবির শ্যুটিংয়ে ব্যস্ত। এই সিনেমায় তাঁর সঙ্গে স্ক্রিন শেয়ার করতে দেখা যাবে ধনুষ ও অক্ষয় কুমার কে। এটাই প্রথম একসঙ্গে এই তিনজনের কাজ। সম্প্রতি এই ছবির কাজের জন্য আগ্রায় ছিলেন তাঁরা।

এর আগে অভিনেত্রীকে বরুণ ধাওয়ান এর বিপরীতে ডেভিড ধাওয়ান এর কুলি নম্বর ওয়ান এ দেখা যায়। OTT প্ল্যাটফর্মে মুক্তি পায় এটি। কিন্তু সেভাবে দর্শকদের ভালবাসা পায়নি।

https://www.instagram.com/p/CLv_K18p2V8/?utm_source=ig_embed

About স্টাফ রিপোর্টার

Check Also

কাশিমপুর কারাগারে পরীমণি

আলোচিত নায়িকা পরীমণিকে গাজীপুরের কাশিমপুর মহিলা কেন্দ্রীয় কারাগারে আনা হয়েছে। এ সময় তাঁকে দেখতে কারাফটকের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *